নোবেল পেলেন দুই রসায়ন বিজ্ঞানী

চ্যানেল ৯৬বিডি.কম, আন্তর্জাতিক ডেস্ক : গত বছরের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে এবারও রসায়নে নোবেল পেয়েছেন দুজন রসায়ন বিজ্ঞানী। তারা হলেন জার্মানির বেঞ্জামিন লিস্ট এবং যুক্তরাষ্ট্রের ডেভিড ম্যাকমিলান।

বুধবার বিকেলে সুইডেনের রয়্যাল সুইডিশ অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেস রসায়নে চলতি বছর এই দুই বিজ্ঞানীর নোবেল প্রাপ্তির সংবাদ নিশ্চিত করেছে।

অপ্রতিসম অর্গানোক্যাটালাইসিস বা জৈব-অনুঘটন বিক্রিয়া আবিষ্কারের জন্য এই পুরস্কার পেয়েছেন দুই বিজ্ঞানী। যে পদ্ধতিতে নতুন ধরনের অনুঘটক ব্যবহার করে রাসায়নিক বিক্রিয়ার মাধ্যমে নতুন অনু গঠন সম্ভব।

তাদের এই আবিষ্কার ওষুধ শিল্পের জন্য নতুন দুয়ার উন্মোচন করেছে বলে জানিয়েছে রয়্যাল সুইডিশ অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেস। পুরস্কার হিসেবে প্রাপ্ত ১ কোটি ক্রোনার ভাগ করে নেবেন দুই বিজ্ঞানী।

করোনা মহামারির কারণে গত বছরের মতো চলতি বছরও সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে বুধবার রয়্যাল সুইডিস অ্যাকাডেমি ছোট আকারের অনুষ্ঠান আয়োজনের মাধ্যমে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেছে; গতবারের মতো সেই অনুষ্ঠানে আয়োজক কমিটির বাইরে অন্য কোনো অতিথি উপস্থিত ছিলেন না।

গত বছর রসায়নে নোবেল পেয়েছিলেন ২ জন। তারা হলেন— ফ্রান্সের এমানুয়েল শার্পেন্তিয়ের এবং যুক্তরাষ্ট্রের জেনিফার ডাউডনা।

এই দুই নারী বিজ্ঞানী ২০২০ সালে নোবেল পুরস্কার পেয়েছিলেন রসায়নের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শাখা জৈব রসায়নে অবদান রাখার জন্য। ‘জেনেটিক সিজার্স’ নামে একটি প্রযুক্তি আবিষ্কার করেছিলেন তারা, যার মাধ্যমে পশু ও উদ্ভিদকোষের ডিএনএতে বদল ঘটানো সম্ভব।

১৯০১ সাল থেকে নোবেল পুরস্কার প্রদান শুরু হয়। তারপর থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত রসায়নে মোট ১১৪টি নোবেল পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। ১৯০১ সালে রসায়নে প্রথম নোবেল পেয়েছিলেন নেদাল্যান্ডসের রসায়নবিদ হেনরিকাস ভ্যান্ট হফ।

টেলিভিশন ও ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে নোবেল পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান সম্প্রচার করেছে নোবেল ফাউন্ডেশন। বিজয়ীদের প্রাপ্ত পদক ও সনদ পৌঁছে যাবে তারা যেসব দেশের নাগরিক, সেসব দেশের কূটনীতিকদের কাছে। বিজয়ীরা দেশে তাদের কাছ থেকে পদক ও সনদ সংগ্রহ করবেন।

প্রতি বছর শান্তি, সাহিত্য, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, চিকিৎসা ও অর্থনীতি— এই ৬ বিষয়ে যারা বিশেষ অবদান রেখেছেন; তাদের পুরস্কার প্রদান করে সুইডেনভিত্তিক নোবেল ফাউন্ডেশন। আগামী ১১ অক্টোবর পর্যন্ত ২০২১ সালের নোবেল পুরস্কার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হবে।

উনবিংশ শতাব্দীতে সুইডিশ বিজ্ঞানী আলফ্রেড নোবেল আবিষ্কার করেছিলেন ডিনামাইট নামের ব্যাপক বিধ্বংসী বিস্ফোরক; যা তাকে বিপুল পরিমাণ অর্থ-সম্পত্তির মালিক করে তোলে। মৃত্যুর আগে তিনি উইল করে যান— প্রতি বছর ৬টি বিষয়ে যারা বিশেষ আবদান রাখবেন; তাদের যেন এই অর্থ থেকে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

১৯০১ সাল থেকে শুরু হয় নোবেল পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান। চলতি বছরে সোমবার থেকে শুরু হওয়া এই পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান শেষ হবে আগামী ১১ অক্টোবর।

সোমবার (৪ অক্টোবর) চিকিৎসায় নোবেল বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। চলতি বছর চিকিৎসায় নোবেল পেয়েছেন লেবানিজ বংশোদ্ভূত মার্কিন বিজ্ঞানী আর্ডেম পাতাপুতিয়ান ও মার্কিন বিজ্ঞানী ডেভিড জুলিয়াস।

নোবেল পুরস্কারের ১ কোটি সুইডিশ ক্রোনার ভাগাভাগি করে নেবেন এ দুই বিজ্ঞানী।

বৃহস্পতিবার সাহিত্যে চলতি বছরের নোবেল বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে। এরপর শুক্রবার শান্তি এবং আগামী সোমবার (১১ অক্টোবর) অর্থনীতিতে এবারের নোবেল পুরস্কার জয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে।