সারা দেশে দৃস্টিনন্দন ৫০ মডেল মসজিদ উদ্বোধন

চ্যনেল৯৬বিডি,

ঢাকাঃ মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রথম পর্যায়ে ৫০টি মডেল মসজিদের উদ্বোধন করা হয়েছে। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৃহস্পতিবার এসব মসজিদের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলা শহরে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ করছে সরকার। সরকারের দাবি, বিশ্বে কোনো দেশে একসঙ্গে এত বিপুল সংখ্যক মসজিদ নির্মাণ এটাই প্রথম।

নান্দনিক নির্মাণশৈলীর এসব মডেল মসজিদে রয়েছে একটি করে মিনার। যা নির্মাণ করা হয়েছে আরব বিশ্বের মসজিদ কাম ইসলামিক কালচারাল সেন্টারের আদলে। যাতে রয়েছে বিভিন্ন আধুনিক সুযোগ-সুবিধা।

৪০ শতাংশ জমির ওপর তিন ক্যাটাগরিতে নির্মাণ করা হয়েছে এসব মসজিদ। জেলা পর্যায়ে যা হবে চারতলা, উপজেলা তিনতলা আর উপকূলীয় এলাকায় হবে চারতলা। দুর্যোগের সময় আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহারের জন্য উপকূলীয় এলাকায় মসজিদের নিচতলা ফাকা রাখা হয়েছে।

জেলা সদর ও সিটি করপোরেশন এলাকায় একসাথে ১২০০, উপজেলা ও উপকূলীয় এলাকায় এসব মসজিদে একসঙ্গে ৯০০ মানুষের নামাজের ব্যবস্থা থাকবে।

আলাদা জায়গা রয়েছে নারী-পুরুষ উভয়ের জন্য। দেশের প্রতিটি উপজেলায় নারীদের মসজিদে নামাজ পড়ার ব্যবস্থা এটাই প্রথম। সারাদেশে এসব মসজিদে প্রতিদিন ৪ লাখ ৯৪ হাজার ২০০ জন পুরুষ এবং ৩১ হাজার ৪০০ জন নারী একসঙ্গে নামাজ পড়তে পারবেন।

এছাড়া মডেল মসজিদে থাকছে লাইব্রেরি, গবেষণাকেন্দ্র, ইসলামী বই বিক্রয়কেন্দ্র, কোরআন হেফজ বিভাগ, শিশু শিক্ষা, অতিথিশালা, বিদেশি পর্যটকদের আবাসন, মৃতদেহ গোসলের ব্যবস্থা, ইমামদের প্রশিক্ষণ, অটিজম কেন্দ্র, গণশিক্ষাকেন্দ্র ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র।

প্রতি বছর ১ লাখ ৬৮ হাজার শিশুর প্রাথমিক শিক্ষার ব্যবস্থা এবং ২ হাজার ২৪০ জন দেশি-বিদেশি অতিথির আবাসন সুবিধাও রাখা হচ্ছে এসব মসজিদে।

হজযাত্রীদের প্রশিক্ষণসহ হজ পালনের জন্য ডিজিটাল নিবন্ধনের বিশেষ ব্যবস্থা থাকবে এসব মডেল মসজিদে। এছাড়া ইমাম-মুয়াজ্জিনের আবাসনসহ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য অফিসের ব্যবস্থা এবং গাড়ি রাখার সুবিধা রাখা হয়েছে।

নতুন নির্মিত এসব মডেল মসজিদে সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ সরবারহের জন্য রয়েছে সাব স্টেশন ও শক্তিশালী জেনারেটর। রাখা হয়েছে বজ্র নিরোধক, সিসি ক্যামেরাসহ নানা রকম নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থাও ।