গাজায় ইসরায়েলের হামলা, ১৩শিশুসহ নিহত ১৮১

চ্যানেল ৯৬বিডি.কম,

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :  গাজায় ইসরায়েলের বোমা হামলায় ১৩শিশুসহ  ১৮১ জন নিহত হয়েছে। এছাড়া হামাসপ্রধান ইয়াহইয়া আল সিনওয়ারের বাড়ি লক্ষ্য করে বোমা হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। স্থানীয় সময় রোববার (১৬ মে) ইসরায়েলি বিমান থেকে বাড়িটি লক্ষ্য করে বোমা নিক্ষেপ করা হয়।  বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, হামাসের আল-আকসা টেলিভিশন এক খবরে হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে হামাসপ্রধান আহত কিংবা নিহত হয়েছেন কি না, সে বিষয়ে কিছু বলা হয়নি।

ইয়াহইয়া আল সিনওয়ার ২০১৭ সাল থেকে গাজায় হামাসের রাজনৈতিক ও সামরিক শাখার নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন।আল-আকসা টেলিভিশন জানায়, ওই হামলার জবাবে সকালেই তেল আবিব ও ইসরায়েলের দক্ষিণাঞ্চলের শহরগুলোয় রকেট হামলা চালিয়েছে হামাস।

এদিকে, রোববার (১৬ মে) সকালেও ইসরায়েলি বিমান হামলায় আরও ৪ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১২ জন। এ ছাড়া সকালের হামলায় দুটি ভবন ধসে পড়েছে।

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় বিমান হামলা অব্যাহত রেখেছে ইসরায়েলী দখলদার বাহিনী। রোববার ভোরেও গাজা শহরের কেন্দ্রে ঘুমন্ত ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলের হামলায় ৩৩ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে ১৩ জন শিশু।

রয়টার্স জানিয়েছে, এ নিয়ে ইসরায়েলের গত এক সপ্তাহের অব্যাহত হামলায় গাজা উপত্যকায় নিহত ফিলিস্তিনির সংখ্যা বেড়ে ১৮১ জনে দাঁড়িয়েছে। যাদের মধ্যে ৫২ শিশু রয়েছে। এদিকে হামাসের ছোড়া রকেটে ইসরায়েলে দুই শিশুসহ ১০ জন প্রাণ হারিয়েছেন।

ইসরায়েলি হামলায় কমপক্ষে দুইটি আবাসিক ভবন ধসে পড়েছে। এদিকে ইসরায়েলের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস প্রধানের বাড়ি। হামাসের আল আকসা টেলিভিশনের এক খবরে বলা হয়েছে যে, গাজার হামাস প্রধান ইয়াহইয়া আল সিনওয়ারের বাড়িতে হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল।

এদিকে ফিলিস্তিনিদের ওপর হামলা অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। শনিবার রাতে টেলিভিশনে দেয়া এক ভাষণে তিনি বলেছেন, যতদিন প্রয়োজন গাজায় হামলা অব্যাহত থাকবে। তবে এতে হতাহত যতটা কমানো যায় তার সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হবে বলে জানান তিনি।

নেতানিয়াহুর এমন বক্তব্যের পর ইসরাইলি বাহিনীর হামলার মাত্রা আরও বেড়েছে। রোববার সন্ধ্যায় গাজায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা ও মার্কিন বার্তা সংস্থা এপির কার্যালয় ধ্বংস করে দিয়েছে ইসরায়েল। হামলায় বহুতল ভবনটি ধসে পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে যায়। এতে বেশকিছু অফিস ও আবাসিক ফ্ল্যাট ছিল।

ইসরায়েল এবং ফিলিস্তিনিদের মধ্যে চলমান সংঘাত নিয়ে  রোববার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ বৈঠক বসছে। অপরদিকে জেরুজালেম ও গাজায় ইসরায়েলের অব্যাহত হামলার বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে আজ জরুরি বৈঠক ডেকেছে ওআইসি। বিশ্বের ৫৭টি মুসলিম দেশের প্রতিনিধিদের বৈঠকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।