চলছে বইমেলার প্রস্তুতি

চ্যানেল ৯৬বিডি.কম,

ঢাকা : করোনার কারনে এ বছর একুশে বই মেলার সময় পরিবর্তন হয়েছে। ফেব্রুয়ারির পরিবর্তে ১৮ মার্চ থেকে শুরু হবে বই মেলা।   মেলাকে ঘিরে বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে চলছে স্টল তৈরিসহ আনুশিঙ্গক প্রস্তুতি।

ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) বিকেল ৪টায় বইমেলার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলা ভাষাকে মাতৃভাষা হিসাবে প্রতিষ্ঠার জন্য ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি ৮ জন বাঙালির আত্মত্যাগের স্মরণে প্রতিবছর মাসব্যাপী এই বইমেলার আয়োজন করা হয়।

সরজমিনে বাংলা একাডেমি চত্বর এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মেলার স্টল প্রস্তুত ও অবকাঠামাে নির্মাণে শ্রমিকদের ব্যস্ত থাকতে দেখা গেছে।

মিস্ত্রিদের হাতুড়ি-পেরেক আর কাঠের ঠুকঠাক শব্দে পুরোদমে চলছে স্টল, প্যাভিলিয়ন, মঞ্চ তৈরির কাজ। আকর্ষণীয় স্টল নির্মাণে ব্যস্ত সময় পার করছেন কারিগররা।

বইমেলার সার্বিক বিষয়ে প্রস্তুতি সম্পর্কে বাংলা একাডেমির পরিচালক ও মেলা আয়ােজক কমিটির সদস্য সচিব জালাল আহমেদ বলেন, মেলা সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য আমদের যথেষ্ট প্রস্তুতি রয়েছে।

এবারে মেলার স্টলগুলো উদ্যানের স্বাধীনতা স্তম্ভকে কেন্দ্র করে ঢেলে সাজানো হয়েছে। স্বাধীনতা স্তম্ভের চারিদিকে বাংলা বর্ণমালা দিয়ে তৈরি করা হবে হরফ স্থাপনা। এ বছর মেলার জন্য নির্ধারিত স্থান প্রায় ১৫ লক্ষ বর্গফুট, যা আগের বছরের চেয়ে ছয় লক্ষ ৫০ হাজার বর্গফুট বেশি। ৫২২টি প্রকাশনী প্রতিষ্ঠানকে ৮০৭ ইউনিট বিন্যাস্ত করা হয়েছে

প্রতিদিন রবি থেকে বৃহস্পতিবার প্রতিদিন বিকাল ৩টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত বইমেলা সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্র ও শনিবার বেলা ১১টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

এ বছর বাংলা একাডেমিসহ ৩৩টি প্রকাশনা সংস্থাকে প্যাভিলিয়ন দেয়া হয়েছে। গত বছর এ সংখ্যা ছিল ৩৪। এছাড়া ৫২২টি প্রকাশনী প্রতিষ্ঠানকে ৮০৭ ইউনিট বিন্যাস্ত করা হয়েছে।