শুভ বড়দিন পালিত

চ্যানেল ৯৬বিডি.কম
ঢাকা : শুভ বড়দিন পালিত। খ্রিষ্ট ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব। এই দিনে খ্রিষ্ট ধর্মের প্রবর্তক যিশু খ্রিষ্ট বেথলেহেমে জন্মগ্রহণ করেছিলেন।

খ্রিষ্ট ধর্মাবলম্বীরা বিশ্বাস করেন, সৃষ্টি-কর্তার মহিমা প্রচার এবং মানবজাতিকে সত্য ও ন্যায়ের পথে পরিচালিত করতে প্রভু যিশুর এই ধরায় আগমন ঘটে।

অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশের খ্রিষ্ট ধর্মানুসারীরাও যথাযথ ধর্মীয় আচার, আনন্দ-উৎসব ও প্রার্থনার মধ্য দিয়ে স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণ করে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে দিনটি উদযাপন করবেন।

আজ সরকারি ছুটির দিন। দিনটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খ্রিষ্ট ধর্মাবলম্বীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে পৃথক বাণী দিয়েছেন।

বড়দিন উপলক্ষে গির্জায় বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হবে। দিনটি উপলক্ষে অনেক খ্রিষ্টান পরিবারে কেক তৈরি হবে, থাকবে বিশেষ খাবারের আয়োজন। দেশের অনেক অঞ্চলে কীর্তনের পাশাপাশি ধর্মীয় গানের আসরও বসবে।

তবে করোনা মহামারীর প্রকোপে এবারে থাকছে না উদযাপনের অনেক চিরচেনা চিত্র।

ভাইরাসটির সংক্রমণে বিপর্যস্ত গোটা বিশ্ব। তবুও সর্বোচ্চ সংক্রমণের মধ্যেই দেশে দেশে চলছে নানা আয়োজন। উৎসবটিতে বাড়তি সতর্কতা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

বড়দিন উপলক্ষে মহামারীর আতংকের মধ্যেই দেশে দেশে চলছে সীমিত পরিসরে উৎসবের প্রস্তুতি। রাশিয়ার মস্কোতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নানা আকৃতির ক্রিসমাস ট্রি দিয়ে সাজানো হয়েছে ঐতিহ্যবাহী ক্রিসমাস ট্রি মার্কেট। রাস্তাঘাটে উৎসবের আমেজ দেখা গেছে ক্রোয়েশিয়ায়।

উৎসবকে সামনে রেখে সংক্রমণ ঠেকাতে আজ থেকেই চারদিনের লকডাউন ঘোষণা করেছে ইতালি। ফলে দেশটিতে এবারের আয়োজন হবে ঘরোয়াভাবেই। জার্মানিতে রয়েছে কঠোর বিধিনিষেধ, বড়দিনের মধ্যেও অধিকাংশ শপিংমল বন্ধ রেখেছে প্রশাসন। বাতিল করা হয়েছে ঐতিহ্যবাহী বিভিন্ন আয়োজন। যার ফলে ভাটা পড়েছে উৎসবের আনন্দে।

ক্রিসমাস উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্রের একাধিক অঞ্চলে চারস্তরের বিধিনিষেধ আরোপ করেছে বরিস প্রশাসন। সংক্রমণ ঠেকাতে আংশিক লকডাউন জারি করেছে মেক্সিকোও। তবে ভাইরাসের প্রকোপের মধ্যেও বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের রকফেলার সেন্টারে ক্রিস্টমাস ট্রি দেখতে ভিড় জমিয়েছেন শহরটির বাসিন্দারা।

এছাড়াও সংক্রমণের ঝুঁকির মধ্যেই ভারতে চলছে ক্রিসমাসের শেষমুহূর্তের কেনাকাটা। দোকানপাট গুলোতে দেখা গেছে স্থানীয় ক্রেতাদের ভিড়। আর বেশিরভাগ ঘরোয়া আয়োজনেই বড়দিনের প্রস্তুতি নিচ্ছে ব্রাজিল।