দেশের যে এলাকায় নারী নেই

চ্যানেল ৯৬বিডি ডটকম

সাতক্ষীরা :  দেশী বিদেশী পর্যটকদের কাছে বেশ আকর্ষনীয় সুন্দরবন। প্রতিবছর এখানে ঘুরতে আসেন লক্ষ লক্ষ পর্যটক। সমুদ্রের পেটে সুন্দরবনের জন্ম, এ এক অন্যরকম দৃশ্য। সুন্দরবন ভ্রমণে কটকা, হিরণ পয়েন্টের পর পর্যটকদের আকর্ষণ করে দুবলার চর।

চর হিসেবে পরিচিত হলেও দুবলার চর মূলত কুঙ্গা ও মরা পশুর নদের মাঝে অবস্থিত একটি দ্বীপ। দুবলার চর কটকার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং হিরণ পয়েন্টের দক্ষিণ-পূর্বে অবস্থিত। শুটকির রাজ্য খ্যাত দুবলার চরে এসে ভুলে যাবেন চিরাচরিত সাধারণ জীবনের কথা। এ এক অন্যরকম জগৎ। চারদিকে শুটকি আর শুটকি। কেউ শুটকি শুকাচ্ছে,

কেউ ঝুড়ি বোঝাই শুঁটকি মাথায় নিয়ে যাচ্ছে, কেউ কেউ শুঁটকি বাছাই করছে, কেউ মাছ ধরার জাল ঠিক করছে, কেউবা করছে খাবারের আয়োজন। তবে এরা সবাই পুরুষ। এখানে কোনো নারী নেই।

সরকারী অনুমোদনপ্রাপ্ত ২০ হাজার জেলে শুষ্ক মৌসুমে এখানে মাছ ধরার জন্য আসে এবং অস্থায়ী বাসস্থান তৈরি করে মাছ ধরা, শুঁটকি করাসহ আনুসঙ্গিক কাজে নিয়োজিত থাকে। এই সময়টাতে শুঁটকিকে উপলক্ষ করে পর্যটকরা ঘুরতে আসেন, শুঁটকি বিক্রির জন্য রয়েছে একটি বাজারও। এখানে আরো একটি কারণে লোকসমাগম হয়ে থাকে, তা হলো হিন্দুদের পুণ্যস্নান এবং রাসমেলা। প্রতিবছর নভেম্বর মাসে এই ধর্মীয় উৎসব অনুষ্ঠিত হয় এখানে।

শুটকী গ্রামে দেখা মিলবে ছড়ানো ছিটানো ছোট ছোট অসংখ্য ছনের ঘর, যেগুলোর বড় আঙ্গিনায় শুকাতে দেওয়া আছে হরেক রকমের মাছ। কেউ ঝুড়ি বোঝাই করে শুঁটকি মাথায় নিয়ে যাচ্ছে, কেউ কেউ শুঁটকি বাছাই করছে, কেউ মাছ ধরার জাল ঠিক করছে। এ যেন রানীহীন রাজার রাজত্ব।নারী নেই